H2

রিউম্যাটিক হার্ট ডিজিজ বা বাতজ্বরের কারণ ও চিকিৎসা

রিউম্যাটিক-হার্ট-ডিজিজ


রিউম্যাটিক হার্ট ডিজিজ বা বাতজ্বর


রিউম্যাটিক হার্ট ডিজিজ এমন একটি অবস্থা যার মাধ্যমে হার্টের ভালভগুলি স্থায়ীভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হয়। এর মূল কারণ রিউম্যাটিক ফিভার বা বাতজ্বর। আর বাতজ্বরের জন্য দায়ী ব্যাক্টেরিয়া হলো স্ট্রেপটোকক্কাস পায়োজেনস।

বাত জ্বর একটি প্রদাহজনক রোগ, যা গলা দিয়ে শুরু হয়। এটি সারা শরীর জুড়ে সংযোজক টিস্যুগুলিকে প্রভাবিত করতে পারে, বিশেষত হৃদপিণ্ড, জয়েন্টগুলি, মস্তিষ্ক এবং ত্বকে। যদিও বাতজনিত জ্বর সমস্ত বয়সের লোককে আঘাত করতে পারে। তবে এটি 5 থেকে 15 বছর বয়সী শিশুদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি দেখা যায়।


রিউম্যাটিক হার্ট ডিজিজ রোগের সম্ভাবনা কাদের বেশি থাকে ?

যদি চিকিৎসা না করা হয় তবে স্ট্র্যাপ সংক্রমণ রিউম্যাটিক হার্ট ডিজিজ এর ঝুঁকি বাড়িয়ে তুলতে পারে যেকোনো বয়সেই । তবে শিশুদের মধ্যেই বেশি সম্ভবনা থাকে। আর যেসব শিশু বারবার স্ট্র্যাপ সংক্রমণ এ আক্রান্ত হয় তাদের বাত জ্বর এবং বাতজনিত হৃদরোগের সম্ভাবনা বেড়ে যায়।


বাত জ্বর এর লক্ষন গুলি কি কি ?

রিউম্যাটিক হার্ট ডিজিজ এর (rheumatic heart disease) লক্ষণগুলি শুরুর দিকে নজরে আসে না এবং হার্টের ক্ষতি সহজে লক্ষণীয় হয় না। যখন লক্ষণগুলি উপস্থিত হয় তখন হার্টের ক্ষতির পরিমাণ বৃদ্ধি পেয়ে থাকে বেশ খানিকটা। বিশেষ কিছু লক্ষণ রয়েছে এই রোগের, যেমন -
  • জ্বর
  • হাড়ের জয়েন্ট ফুলে যাওয়া
  • চামড়ার মধ্যে লাম্প বা ফুলে যাওয়া
  • বুকে, পিঠে বা পেতে লাল রঙের র্যাশ বেরোনো
  • নিঃস্বাস নিতে সমস্যা হওয়া
  • শারীরিক দুর্বলতা


এই রোগের চিকিৎসা কিভাবে হয় ?

বাতজনিত হৃদরোগে আক্রান্ত ব্যক্তিদের স্ট্রেপ সংক্রমণ হয়ে থাকে। স্ট্রেপ পরীক্ষা করার জন্য গলা পরীক্ষা বা রক্ত পরীক্ষা করা যেতে পারে।

গলার পরীক্ষা ও রক্ত পরীক্ষার পাশাপাশি রিউম্যাটিক হার্ট ডিজিজ নির্ণয়ের জন্য ব্যবহৃত অন্যান্য পরীক্ষাগুলি হলো :

  • ইকোকার্ডিওগ্রাফি
  • ই সি জি
  • চেস্ট এক্সরে
  • বুকের এম আর আই, ইত্যাদি



কি কি জটিলতা সৃষ্টি হতে পারে বাত জ্বর থেকে ?

হার্ট ফেলিওর হতে পারে।

হার্টের ক্ষতির কারণে প্রেগন্যান্সি তে সমস্যা তৈরী হতে পারে।

হার্টের ভালভ ছিঁড়ে যেতে পারে। এক্ষত্রে দ্রুত অপারেশনের প্রয়োজন হয়।


রিউম্যাটিক হার্ট ডিজিজ কে আটকানো যায় ?

স্ট্রেপ ইনফেকশন কে আটকে দিতে পারলে এই রোগের সমস্যা থেকে মুক্ত হয় যেতে পারে। সঠিক মেডিসিন এর ভূমিকা এই ব্যাপারে অসীম।

এন্টিবায়োটিক এর সঠিক কোর্স করা উচিত। রোগী সুস্থ হয়ে যাচ্ছে ভেবে এই কোর্স বন্ধ করা যাবে না। সম্পূর্ণ কোর্স কমপ্লিট করতে হবে।


রিউম্যাটিক হার্ট ডিজিজ এর চিকিৎসা সম্ভব ?

হ্যাঁ এই রোগের চিকিৎসা সম্ভব। কতটা ক্ষতি হয়েছে তার ওপরে নির্ভর করে চিকিৎসা করা হয়। বেশি মাত্রায় ক্ষতি হয়ে থাকলে অপারেশন পর্যন্ত করতে হতে পারে ক্ষতিগ্রস্ত ভাল্ভকে সরিয়ে ফেলার জন্য।

কিছু পরিচিত ওষুধ, বিশেষত এন্টিবায়োটিক দেওয়া হতে পারে বাত জ্বরকে আটকানোর জন্য এবং হার্টের ক্ষতির মাত্রা কমানোর জন্য। এমনকি এই ওষুধের ব্যবহার জীবনভর চলতে পারে।


আপনার মতামত

যদি আজকের আলোচনা থেকে আপনার কিছুমাত্র উপকার হয় তবে অবশ্যই প্রিয়জনদের সাথে শেয়ার করতে ভুলবেন না। আমরা এখন ইউটিউবে আছি, সার্চ করুন SACHETAN JIBAN

এছাড়াও অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়াতেও সচেতন জীবনকে পেয়ে যাবেন আপনার সুস্বাস্থ্য ও সচেতনতার প্রয়োজনে। সুস্থ থাকুন, সচেতন থাকুন।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ

H2